Participate in 31 Days : 31 Writing Prompts Season 3 contest and win a chance to get your ebook published
Participate in 31 Days : 31 Writing Prompts Season 3 contest and win a chance to get your ebook published

ইনফিডেল

ইনফিডেল

2 mins 487 2 mins 487


আলিপুরদুয়ারের অদূরেই আর বাঙলা ভুটান সীমান্তের খুব কাছেই হ্যামিলটনগঞ্জে বেড়াতে এসেছে দেব আর রাই। ডুয়ার্সে প্রকৃতির সৌন্দর্য এখানে অনন্য,পাশ দিয়েই বয়ে যাচ্ছে উচ্ছল সম্পূর্ণযৌবনা মূর্তি নদী,কাছেই হাসিমারা অভয়ারণ্য আর সম্পূর্ণশরীরা সুন্দরী তোর্সা নদী। পাহাড়ের কোলে চা বাগিচার যেমন অপরূপ ল্যান্ডস্কেপ,দিগন্তরেখায় ধূসর পাহাড়শ্রেণীর সৌন্দর্য অপরূপ,মূর্তি নদীতে যখন সূর্য অস্ত যায় তখন সেই অবর্ণনীয় সৌন্দর্যসুষমা প্রেমিকমনে এক অনন্য শিহরণ জাগিয়ে তোলে।

যাই হোক,দেব আর রাই দুজনেই শুনেছে যে,এই ডুয়ার্সের কাছেই শাল সেগুনের গহন বনের মধ্যে ছোট্ট একটা পুরনো চার্চ রয়েছে যেখানে ফাদার অলিভার ডি'কোস্টা অতিরিক্ত ক্ষমতা আর অলৌকিক শক্তি লাভ করার লোভে ইনফিডেল হয়েছিলেন। অমাবস্যার রাতে প্রভু শয়তানের কাছে শিশুরক্ত নিবেদিত করতেন। এলাকার লোকজন সেটা জেনে ফেললে তারা ক্রোধে ফাদার ডি'কোস্টাকে পিটিয়ে মারে।

চার্চের পাশেই আছে পুরনো কবরস্থান।সেখানে ফাদার ডি'কোস্টাকে সমাধিস্থ করা হয়। সেই থেকে ভাঙা চার্চ আর ঐ কবরস্থান অভিশপ্ত হয়ে পড়েছে। ফাদার ডি'কোস্টার অশুভ আত্মা নাকি ওখানে ঘুরে বেড়ায় নিজের অভিলাষা চরিতার্থ করার জন্য। দিনের বেলাতেই মানুষ ওদিকে যায় না,রাতবিরেত তো দূরের কথা।

যাই হোক,দেব আর রাই দুজনেই ন্যাচার লাভার। গরমকাল। সূর্যাস্তের এখনো এক ঘন্টা দেরি আছে । ফটোগ্রাফির জন্য গহন বনে ঘুরে বেড়াচ্ছে দেব আর রাই,শোনা যাচ্ছে হাতির ডাক,কাছেই কোনো জংলী হাতির দল ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এমন সময় আকাশ ছেয়ে গেল কালো মেঘে। বইতে লাগল ঠাণ্ডা ঝোড়ো হাওয়া। কালবৈশাখী হতে চলেছে। আরে ঐ তো পুরনো সেই ভাঙা চার্চটা। বৃষ্টিবাদলার সময় ওখানেই আশ্রয় নিল প্রেমিকযুগল। আশেপাশে প্রকৃতি যেন প্রলয়নৃত্য শুরু করেছে।

বৃষ্টি থেমে গেছে। সূর্যাস্তও ঘটে গেছে। চার্চ থেকে বেরিয়ে এল দেব আর রাই। প্রকৃতি এখন শান্ত। দূরেই ঐ পরিত্যক্ত কবরস্থান। অদ্ভুত এক নীরবতা বিরাজ করছে চারিদিকে। পৃথিবীর বুকে সন্ধ্যা ঘনায়মান। এদিকটায় কোনো পশুপাখিও আসে না,এখনো কোনো পাখির ডাক শুনতে পেল না দুজনে।


দেবের হাত ধরতে গিয়েই চমকে উঠল রাই। দেবের হাত মাত্রাতিরিক্ত শীতল,ঠোঁটের কোণে ভেসে উঠল ক্রুর হাসি,চোয়ালের দুদিক থেকে বেরিয়ে আসছে শুভ্রধবল শ্বদন্ত। ভাঁটার আগুনের মতো চোখদুটি জ্বলছে। খনখনে অপার্থিব স্বরে পৃথিবীর সমস্ত আতঙ্ক বিদ্যমান। নরকের অতিশীতল হাওয়া বইছে। বুঝতে পারল রাই, এ তার চিরপরিচিত প্রেমিক দেব নয়,দুশো বছর আগে ইনফিডেল হওয়া ফাদার ডি'কোস্টার নারকীয় প্রেতাত্মা।


Rate this content
Log in

More bengali story from arijit bhattacharya

Similar bengali story from Horror