SUBHAM MONDAL

Tragedy


4.7  

SUBHAM MONDAL

Tragedy


জিজ্ঞাসা

জিজ্ঞাসা

2 mins 1.9K 2 mins 1.9K

কাল থেকে লাশকাটা ঘরে শুয়ে আছি, মনটা এখন বড়ই প্রশান্ত, মনের গভীরে আর কোন ক্ষত, জ্বালা, যন্ত্রণা, দুঃখ, বেদনা কিচ্ছু নেই , সব এখন এই নশ্বর দেহ ত্যাগ করে মহাকাশের ছাই হয়ে বিলুপ্তির মুখে।


লাশ কাটা ঘরে আমাকে সেই সঙ্গ দিচ্ছে আরো কিছু ক্ষত বিক্ষত প্রাণহীন দেহ, এরা আমার বড়ই আপন , আমার অতীত নিয়ে এরা একটা ঢুঁ শব্দ পর্যন্ত করেনি, আমি পাগল, আমি হিচকক , আমি প্রেত প্রেমী , বিশ্বাস করুন এখনো পর্যন্ত আমাকে এরা কিচ্ছু বলেনি।


এ জগতে আমার কেউ নেই, যারা এখান থেকে আমার এই দেহ নিয়ে সেই গনগনে জ্বলন্ত চিতার আগুনের মধ্যে আমাকে বিলীন করে দেবে, কেউ বলেনি যে আমি তাদের কোন এক কালের সাথী ছিলাম , তাদের খুব প্রিয় একজন ছিলাম, তারা যে আপনাদের মতন আমাকে ভয় পায়, আমি যে ছিলাম এক ভয়ংকর মানসিক রোগী, কিন্তু বিশ্বাস করুন ওটা আমার অতীত ছিল, আমি নির্জন অন্ধকার ঘরে আমার প্রিয়জনের মৃত দেহ আগলে রেখেছিলাম, তাঁর পচা গলা মাংস পিণ্ড শেষ হয়ে যাবার পরও তাঁর কঙ্কাল রুপি দেহ টাকেও আমি ছারিনি ।


আমি জানি সেটা আমার জীবনের এক দুঃসহ চরম মানসিক অস্থিরতার নিদর্শন, আমার চরিত্রের অনেক পাওয়া না পাওয়ার সর্বশেষ নিরাশা আমার নিঃসঙ্গ জীবনে তিলে তিলে মৃত্যুর আহ্বানের চরম হতাশা। আমি পারিনি আপনাদের মতন মানসিক জোরের আস্ফালনে এই অন্ধকার গহ্বর থেকে মুক্তির আলো দেখতে।


কিন্তু বিশ্বাস করুন আমি মনে প্রানে চেয়েছিলাম আপনাদের মধ্যেই ফিরতে, আপনাদের মতন হয়ে, আমার ভয়ংকর অতীতে যে সূর্যোদয় আমি দেখতে পাইনি, সেই সূর্যোদয়ের গোলাপি রেখা কিন্তু আমার মনের মধ্যে ধীরে ধীরে এবার ফিরে আসছিল কিন্তু সেই সূর্যোদয় আমার এ জীবনে আর দেখা হলনা, সেই রক্তিম মুক্তির আলোর মাঝে আমার হৃদয় খান খান করে আমার কর্ণে বার বার আঘাত করেছিল আপনাদের চরম বানী - আমি হিচকক, আমি কংকাল প্রেমী , আমি এক নৃশংস প্রেত, যাকে চাক্ষুষ করা যায়না, যার নাম শোনা পাপ, যার নামে বিশ্বসংসারে কম্পন সৃষ্টি হয়, যার তুলনা শুধুই তাঁর অতীত,তাঁর তুলনা বিশ্বসংসারের যাবতীয় ভয়ানক ঘটনার আলিঙ্গনে।


পারলাম না, এ জীবনে নতুন করে সূর্যোদয় দেখতে , আমি জানিনা, কেন এই ব্যর্থতা, কেন আমায় আপন করে নিল না এই সমাজ, কেন আমায় অভয় দিয়ে বিশ্বকে জানালো না – আমি এই সমাজেরই এক শেষ হতে বসা ক্ষুদ্র প্রাণী যাকে সমাজ ভুলে যায়নি,নিজের করে নিয়েছে কিন্তু আমি পেলাম সমাজের নতুন সূর্যোদয়ের আলোর বদলে সূর্য গ্রহনের চরম অন্ধকার।


শেষ করে দিলাম নিজেকে, বেঁচে থাকার কারন আর মাথায় এল না, ফানুস হয়ে চলে গেলাম ,সমাজের এই কারাগার হতে মুক্ত হলাম ,মুক্তি দিলাম এই সমাজ কে।


শুধু একটা জিজ্ঞাসা রয়ে গেল মনে – আমাদের সৃষ্টি করা যে সমাজ, অপরাধ দেখতে ভালবাসে, ভালবাসে তার চুলচেরা বিশ্লেষন করতে , কিন্তু কেন সে বার বার ব্যর্থ হয় আমা মতন ফিরে আসা পথিকের জীবনে নতুন করে এক ঝলমলে সূর্যোদয় দেখাতে?।


Rate this content
Log in

More bengali story from SUBHAM MONDAL

Similar bengali story from Tragedy