Participate in the 3rd Season of STORYMIRROR SCHOOLS WRITING COMPETITION - the BIGGEST Writing Competition in India for School Students & Teachers and win a 2N/3D holiday trip from Club Mahindra
Participate in the 3rd Season of STORYMIRROR SCHOOLS WRITING COMPETITION - the BIGGEST Writing Competition in India for School Students & Teachers and win a 2N/3D holiday trip from Club Mahindra

Sharmistha Mukherjee

Drama Tragedy Crime


3  

Sharmistha Mukherjee

Drama Tragedy Crime


কালো মেয়ের উপাখ্যান

কালো মেয়ের উপাখ্যান

3 mins 235 3 mins 235

যামিনীকে দেখে সিতারা ও নিশি একসাথে চীৎকার করে ওঠে । বিছানার উপর তখন বিষ্ণুর নিথর দেহ । সম্ভবত অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলেই মৃত্যু ঘটেছে । হরিয়া তাড়াতাড়ি গিয়ে যামিনীর ঝুলন্ত দেহটা নামিয়ে বিছানার উপর রাখতেই সবাই ছুটে গেল । যামিনীর মরদেহ জরিয়ে ধরে কান্তা মৌসি কাঁদতে কাঁদতে অজ্ঞান হয়ে গেল । পুলিশকে খবর দিয়েছিল কানাই তাই পুলিশ চলে আসে অতি শীঘ্রই । পুলিশ এসে সবাইকে জেরা করে কিভাবে কি হোলো ? সবাই এক এক করে উত্তর দিলো । শুধু চুপ করে রইলো নিশি । অফিসার সৈকত মিত্রের কোনো কথাই যেন নিশির কর্ণকুহরে প্রবেশ করছে না । প্রায় মিনিট পাঁচেক চুপ থাকার পর নিশি হাতের মুঠোয় ধরে রাখা যামিনীর সুইসাইড নোটটা তুলে দিলো অফিসার মিত্রের হাতে । মৌসি উৎসুক হয়ে চিঠিতে কি লেখা আছে জানতে চাইলে অফিসার সেটা পড়ে শোনায় যেটা ইতিমধ্যেই নিশির পড়া হয়ে গেছে । চিঠিতে লেখা ছিল --

" আমি যামিনী এক দেহ ব্যবসায়ী । শরীরের নানা অঙ্গের পসরা সাজিয়ে এক এক করে বিক্রি করি খরিদ্দারের কাছে । পরিবর্তে পাই

টাকা - যন্ত্রনা - কষ্ট - আঁচড় - কামড় - অসম্মান আরও আরও অনেক কিছু । আজকে যার জন্য আমার এই জায়গায় আসতে হয়েছিল সে এসেছে । যাকে আমি একসময় ভালোবেসে বিয়েও করেছিলাম ।এই লোকটি আমার স্বামী বিষ্ণু পান্ডে । বাড়ি বিহারের কাটিহারে । আজ সে আমার উপর চরম অত্যাচার চালায় । আমার সারা শরীরে অসংখ্য ক্ষত করে দিয়ে শরীরের উপরেও অত্যাচার করে । কোনোরকমে নিজেকে ওর হাত থেকে ছাড়িয়ে ফুলদানি দিয়ে মাথায় মারতেই অজ্ঞান হয়ে যায় । জানি না সে বাঁচবে কিনা । মরে গেলে তো ভালোই , আর যদি বেঁচে যায় তাহলে যেন চরম শাস্তি পায় । আমি আর পারছি না , খুব খুব 

ক্লান্ত । তাই নিজেকে নিজেই ছুটি দিলাম । নিশি, সিতারা তোমরা সবাই ভালো থেকো । 

শ্যামাকে সামলে রেখো । "

লেখাগুলো শুনতেই কান্নার আওয়াজে ঘর যেন ফেটে পড়ছিল । পুলিশ অফিসার সৈকত মিত্র খেয়াল করলো সবাই কাঁদছে কিন্তু নিশি একদম চুপ , ঠোঁটের কোণে একটু হাসির রেখা । অফিসার খানিকটা অবাক হয়ে নিশিকে জিজ্ঞাসা করলো , " কি ব্যাপার ! আপনাকে দেখে খুশি মনে হচ্ছে ? সবাই কাঁদছে আর আপনার মুখে হাসি ? "

নিশি আবারও একটু চুপ থেকে উওর দিলো , " হ্যাঁ খুশি তো বটেই । আজকে যামিনী চির জীবনের জন্য মুক্তি পেয়ে গেল এই নরক যন্ত্রণা থেকে । আর তার থেকেও বেশি খুশি এই ভেবে যে, যার জন্য ওকে এতো কিছু সহ্য করতে হয়েছিল তার উপর চরম বদলা নিয়ে তবে নিজে মরেছে । তাই, তাই আমি খুব খুশি । " নিশির কথা শুনে সবাই স্তম্ভিত । সিতারা ছুটে গিয়ে নিশিকে জরিয়ে ধরে কেঁদে ফেললো । নিশি আবার নির্বাক হয়ে দাঁড়িয়ে রইলো পাথরের মূর্তি হয়ে । অফিসার মিত্রের নির্দেশে কিছু কনস্টেবল এসে যামিনী ও বিষ্ণুর মৃতদেহ নিয়ে চলে যায় । যামিনীর দেহ নিয়ে যাবার সময় নিশির চোখ দিয়ে নেমে আসলো প্রবল জলধারা । 


  ক্রমশঃ প্রকাশ্য


Rate this content
Log in

More bengali story from Sharmistha Mukherjee

Similar bengali story from Drama