Exclusive FREE session on RIG VEDA for you, Register now!
Exclusive FREE session on RIG VEDA for you, Register now!

Atrayee Sarkar

Romance


3  

Atrayee Sarkar

Romance


অদৃষ্ট পর্ব ২

অদৃষ্ট পর্ব ২

4 mins 184 4 mins 184

একদিন বাসে উঠে দেখি টিকিট কাটারও টাকা নেই আমার কাছে । মনটা পুরো ছটফট করছিল আমার। কি করব এবার?.......কার কাছে হেল্প চাইব??

আমার পুরো মাথায় হাত পরেছিল ।

হঠাত্ দেখি বাসের পেছনের সিটে সুভাষ বসে আছে । ওখানে বসার জায়গা আছে দেখে তারাতারি ওর কাছে চলে যাই.।

বোল্লাম--" দেখ না..... টিকিট কাটার টাকা নেই..... একটু হেল্প করে দে ।"

-- " সব টাকা পেটে পুরেছিস।........ "

-- " আমি একটু খেতে ভালোবাসি.....এরকম ভাবে বলার কি আছে??"

-- " কোথায় নামবি বল।"

-- " লেকগার্ডেনস এ......."

-- " কি...........আমিও তো ওখানেই থাকি।"

তারপরই টিকিট conductor আসতে সুভাষ টিকিট কেটে দেয়।

বাস থেকে নামার পর বোল্লাম -- " কোথায় থাকিস তুই??"

-- " ওই যে গলিটা দেখছিস....... ওখান দিয়ে একটু ঢুকলেই একদম প্রথম ফ্ল্যাটটাতে থাকি ।"

গিয়ে দেখি সুভাষ আমাদের বাড়ির থেকে ঠিক দুটো ফ্ল্যাটের আগেই থাকে ।

বললাম -- " কিরে তুই........... কিছুই দেখতে পাস না?"

সুভাষ -- " মানে??"

--" মানে আর কি ওই যে বাড়িটা দেখছিস ওখানে আমি থাকি শুধু ২টো ফ্ল্যাট পরে । আর তুই একটা অন্ধ কিছু দেখতে পাসনা ।"

সুভাষ -- " তুইও তো পাসনি........... আবার বলছিস কি?? আজকের টিকিটের টাকাটা আমি দিলাম। অন্য একদিন তুই কাটবি ।"

-- " আচ্ছা ঠিক আছে যা তো।.... টিকিট কেটেছে না হিরে দিয়েছে।"

এইভাবে মজা করতে করতে আমি আর সুভাষ বেস্ট friend ই হয়ে গেছিলাম ।

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর

আমরা ২ জন.... কলেজে পরতে চলে যাই।

আমরা অন্য কলেজে পড়তাম । কিন্তু একই পাড়ায় থাকতাম বলে,,, বন্ধুত্বটা ঠিক রয়ে গেছিল ।

আমরা কখনো একে অপরের বাড়ি যেতাম। সুভাষের পরিবার আমাকে চিনত,,, যে আমি ওর স্কুল friend ,,, আর আমার,,, মা , বাবাও জানত ।

আমি আমার মা, বাবার একমাত্র মেয়ে আর সুভাষের দিদি ছিল।

সুভাষের দিদির নাম ছিল পিয়ালি।

পিয়ালিদি আমায় খুবই ভালোবাসত । আমি ওদের বাড়ি গেলেই পিয়ালিদি বলতো -- " এই ভাই,, তোর মিষ্টি বন্ধু,,, আর আমরাও বোন শুভমিতা এসছে ।"

পিয়ালিদিকে আমিও খুবই ভালোবাসতাম,,, নিজের দিদির মতন।

২০১৫ সালে পিয়ালিদির বিয়ে হয়ে গেছিল ।

একদিন আমি সুভাষের বাড়ি গিয়ে দেখি ও কি সুন্দর pencil দিয়ে aishwarya rai এর ছবি এঁকেছে। সত্যি একদম কপি পেস্ট করেছে মনে হচ্ছিল। এতোই সুন্দর ছিল।

বললাম -- " ওহ হো,,,,, গোলে পাক হয়ে গেছিস aishwary আর প্রেমে।"

সুভাষ-- " এই ,,,, আমি এঁকেছি শুধু । প্রেম কোথায় করেছি??"

-- " তাহলে অন্যকিছু ও তো আঁকতে পারতিস।

তা না একজন এক্ট্রেসকেই এঁকেছিস ।"

সুভাষ-- " তুই আমায় রাগাচ্ছিস।"

-- " আমি সত্যি কথা বলছি বলে তোর লজ্জা লাগছে,,, আর তাই তুই রেগে যাচ্ছিস । সত্যিটা মেনে নে,, যে তুই ওর প্রেমে ডুবে আছিস ।

তুই কি পাগল নাকি??? Aishwarya কে ভালোবাসছিস???"

সুভাষ-- " আমি এক্ষুণি ছিড়ে দেব ছবিটা।"

সত্যি ও তাই করতে যাচ্ছে দেখে,, আমি ওর হাত আটকে বলি --- " সুভাষ কি করছিস?? অপূর্ব হয়েছে আঁকাটা । আমি মজা করছিলাম । তুই কম্পিটিশনে জিতে যাবি,,, যদি কম্পিটিশনে বসিস।

একটু মজাও করতে পারবো না??"

সুভাষ-- " মজার একটা লিমিট হয় জানিস । তুই সবসময় সেই লিমিটটা ক্রস করে চলে যাস।"

-- " এইভাবে রেগে গেলি?? পেছন ফিরে কি দাড়িয়ে আছিস,, সামনের দিকে তাকানা ।"

সুভাষ-- " শুভমিতা,, আমার এখন কথা বলতে ভালো লাগছেনা,, এখান থেকে যা।"

-- " বেশ,,, চলে যাচ্ছি ।"

পরের দিন যখন সুভাষ কথা বলতে এসছে,, আমি রেগে গিয়ে কথাই বলিনি ।

দুদিন ধরে আমি কথা বলছিলাম না দেখে,, একদিন সুভাষ আমার হাত ধরে টেনে বল্ল-- " কি হয়েছে?? একটা কথা বললে,, তোর এতো রাগ?? আর তুই কি করছিলিস ভাব। কথাই বলবি না আর।

তোকে দেখে মনে হয়,,, এখনও স্কুলে পরিশ । কলেজে পরলে কি হবে,,, maturity আর এলো না তোর মধ্যে ।"

-- " আর তুই খুব matured ,, তাই না?? ছাড় আমায় ।"

সুভাষ-- " রোববার সকালে একটু আনন্দ করতে ভালো লাগে । চল পার্কে যাই একটু,, তারপর কচুরি আর জিলিপি খেয়ে ফিরব ।"

-- " ছাড় আমায় ।"

সুভাষ সেই আমার হাত ধরে আমায় নিয়ে গেল। তারপর সত্যি মজা করতে করতে ফিরছিলাম ।


Rate this content
Log in

More bengali story from Atrayee Sarkar

Similar bengali story from Romance