End of Summer Sale for children. Apply code SUMM100 at checkout!
End of Summer Sale for children. Apply code SUMM100 at checkout!

Koushik Das

Romance Fantasy


2.3  

Koushik Das

Romance Fantasy


রিমঝিম বৃষ্টি (শেষ পর্ব)

রিমঝিম বৃষ্টি (শেষ পর্ব)

3 mins 7.3K 3 mins 7.3K

সেদিনও আকাশ বেশ মেঘলা । স্কুলের এক প্রাক্তন ছাত্র মারা যাওয়াতে প্রেয়ার লাইনের পরেই স্কুল ছুটি হয়ে যায় । রিমঝিমকে অনেকে সিনেমা দেখতে যাওয়ার জন্য জোর করে , ১২ এর দাদারাও যাচ্ছে বলে কিন্তু সে এককথায় না করে দেয় । খুব রাগ উঠছে ওর নিজের ওপরই , কারনটা সে নিজেও জানেনা । তড়িঘড়ি করে সাইকেল স্ট্যান্ড থেকে সাইকেলটা নিয়ে বের হতে যাবে এমন সময় ১২ সায়েন্সের একজন সিনিয়র এসে রিমঝিমের পথ আটকে দাঁড়ায় । সিনিয়র বলে এবার একটু নরম গলায় না বলে দেয় সে । সেই ছেলেটি আরও কয়েকবার চেষ্টা করে বুঝতে পেরে যায় যে একে মানানো সম্ভব ন্‌য়, অগত্যা রাস্তা থেকে সরে যায় । রিমঝিম মনে মনে বলে –"যার আসার কথা সে যদি এসে বলত একবার......”

 

পাগলের মত সাইকেল চালাচ্ছে রিমঝিম । খুব কাঁদতে ইচ্ছে করছে । মন রাস্তার দিকে নেই । আকাশে কালো মেঘগুলো কত নীচে নেমে এসেছে, ছুটে বেড়াচ্ছে, রিমঝিম একটা মেঘকে টার্গেট করে সেদিকেই ছুটে চলেছে ।

এমন সময় ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি নামল । রিমঝিমের মনে হল আজ ইচ্ছেমত ভিজবে সে । তারপর হঠাৎ মা’র বকুনি মনে পড়ল , আর তাছাড়া আবার জ্বরে বিছানায় পড়লে অনেক ক্লাস মিস হবে – এইসব ভেবে একটু ভিজতেই একটা চারতলা বাড়ির নীচে গাড়ি পার্ক করবার জায়গায় শেডের নীচে এসে দাঁড়াল মলি । সাইকেলটা রাস্তার সাইডে স্ট্যান্ড করা । বাঁদিকে অনেকদূর পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে কিন্তু ডানদিকে দেওয়াল থাকায় ওদিকের রাস্তা দেখা যাচ্ছে না । এমন মুষলধারে শুরু হল এবার যে হাঁটু পর্যন্ত ভিজে যাচ্ছে । দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া যাকে বলে সেভাবে বাঁদিকের রাস্তার দিকে তাকিয়ে রইল সে । মাঝেমধ্যে কয়েকটা কাক ছাড়া আর কোন প্রাণীর অস্তিত্ব নেই সেখানে । বৃষ্টির সাথে মনখারাপের একটা অদ্ভুত সম্পর্ক আছে , বৃষ্টি হালকা মন কেমনকে অনেক গাঢ় মনখারাপে বদলে দিতে পারে নিমেষে ! এই একাকীত্ব হচ্ছে যত নষ্টের গোড়া ! নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারলে তাও রেয়ানের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। কিন্তু এখন কি করবে রিমঝিম ! খুব খুব খুব মনে পড়ছে দিলীপ স্যারের ক্লাসে রেয়ানের সেই রক্ত উথালপাতাল করা স্পীচ । এই নির্জনতায় এখন যদি সে রেয়ানকে সামনে পেত তাহলে কিছু একটা অনর্থ হতই হত । এমনটা ভাবতে ভাবতেই হঠাৎ “মা গো” বলে কেঁপে উঠল রিমঝিম ।

ডানদিকের রাস্তা থেকে হুস্‌ করে কাকভেজা হয়ে একটা ছেলে এই শেডের নিচে এসে রিমঝিমকে দেখে থমকে দাঁড়াল ! মনে মনে রিমঝিম চিৎকার করে উঠল –

“ রে-এ-এ-এ-এ-আ-আ-আ-আ-আ-আ-আ-আ-ন......!!!”

গোলাপের পাপড়ির মত রিমঝিমের চোখদুটো থেকে বিস্ময়, ভালোবাসা, অভিমান সবকিছু একসাথে ঠিকরে বের হচ্ছে, তবে গলা থেকে একটা টুঁ শব্দও বের হল না । রেয়ানই সেই সশব্দ বৃষ্টির মাঝে দুজনের মাঝের নিঃস্তব্ধতা ভেঙ্গে বলল –

“ তুমি এখানে...?”

প্রশ্নটা বোকা বোকা হলেও রেয়ানের মাথায় আর কিছু আসছিল না । উত্তরে রিমঝিম বলল –

“ বাড়ি যাচ্ছিলাম, রাস্তায় এমন জোরে বৃষ্টি নামল যে এখানে আটকে

গেলাম ।“

“ অহহহ, তুমি গেলে না কেন সিনেমা দেখতে ...?”

জড়তা ও লজ্জার মাথা খেয়ে রেয়ান জিজ্ঞেস করল । রিমঝিম এবার বেশ অবাক হল ।

“ তুমি জানলে কি করে যে আমি সিনেমা দেখতে যাইনি...!!?”

“ আমিও যাইনি তাই...”

“ মানে...?”

“ মানে, কিছুনা... তুমি বুঝবে না... প্রায় পুরো ভিজেই গেছো তুমি দেখছি । এখন আমরা যেখানে দাঁড়িয়ে আছি সেটা আমারই বাড়ি । তবে বাবা, মা কেউ নেই এখন বাড়িতে, তাই তোমাকে ভেতরে যেতে বলতে পারছি না । তবে তুমি যদি চাও বৃষ্টিটা না কমা পর্যন্ত তোমার সাথে এখানে দাঁড়াতে পারি...”

এতক্ষনের বৃষ্টির কালো কালো ছিটেগুলো হঠাৎ কেমন রামধনু রঙের হয়ে

গেল । এতক্ষণ মনে হচ্ছিল কেন কেউ রাস্তায় নেই ,তবে এখন রিমঝিমের মনে হচ্ছে কেউ যেন আর রাস্তায় না আসে ।

 

সেদিন বৃষ্টি থামতে আরও ১০ মিনিট সময় নিয়েছিল, আর ওদের গল্প থামতে সময় লেগেছিল ৩০ মিনিটের মত । সেদিন বৃষ্টি রিমঝিমকে যা বোঝানোর, যা শেখানোর সবকিছু বুঝিয়ে, শিখিয়ে দিয়েছিল ।

সেদিন রিমঝিম প্রথমবারের মত ভালোবাসা নামের অনুভূতি অনুভব করেছিল । সেদিন প্রথমবারের মত রিমঝিম বুঝেছিল –

ভালোবাসা মানুষকে সহনশীলতা শেখায় , ভালোবাসা মানুষকে সৃষ্টিশীল করে তোলে – হাতে হাত ধরে গড়তে শেখায় । সেই রাতে রিমঝিম প্রথমবারের জন্য কিছু সৃষ্টি করেছিল ডাইরির গোপনীয়তায় –

“ যেদিন

 মেঘ ছুঁতে গিয়ে বৃষ্টিতে ভিজেছিলাম

 সেদিন

 প্রেম এসেছিল...”


Rate this content
Log in

More bengali story from Koushik Das

Similar bengali story from Romance